৯ মাসের বিয়ের আজ এ কেমন পরিণতি? যার জেরে ঘরের বউ এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হল? দেখুন…….

মেয়ের বাবার বক্তব্য :- না প্রেম ভালোবাসা নয়, বরং দেখাশোনা করেই বিয়ে হয়েছিল এই অভাগী মেয়েটির..কিন্তু, স্বামীও শ্বশুরবাড়ির সুখ, কেন তার ৯মাসও টিকলো না?দেখুন, গৃহবধুর এমন করুন পরিণতির কারণে, আজ সত্যিই বলতে লজ্জা লাগছে এ কোন সমাজে বাস করি আমরা….তবে, ঘটনাটি ঘটেছে বারুইপুর থানার অন্তর্গত ফুলতলা ১ নম্বর গেট এলাকায়।

রেজিনার বাবা জানাচ্ছেন, ৯ মাস আগে বারুইপুর ফুলতলার বাসিন্দার নাজিমুলের সঙ্গে দেখাশোনা করে বিবাহ দেয়। বিবাহর পর থেকেই শুরু হয়েছিল মেয়ের উপর জোর দেখানোর খেলা।অনেকবার রেজিনা তার বাবা মাকেও জানিয়েছিল এই ঘটনা। কিন্তু হঠাৎ এদিন রাত্রে নাজিমুলের বাড়ি থেকে ইলিয়াসের বাড়িতে ফোন করে বলা হয় যে মেয়ে আত্মত্যাগ করেছে।

তবে, এই ঘটনা শুনেই মেয়ের বাবার সন্দেহ হয়। এবং তার শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ অভিযোগ তুলে, জানান- মেয়ের এই করুণ পরিণতির পেছনে তার শশুর ঘরই দায়ী।যদিও বারুইপুর থানাই একটি অভিযোগ দায়ের করে মেয়ের বাবা অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত নেমে স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করে বারুইপুর থানার পুলিশ, মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয় মমিনপুরে।দক্ষিণ 24 পরগনা থেকে বাবলু প্রামাণিকের রিপোর্ট