৩ জুন থেকে স্কুল খুললেও শুরু হবে না পঠনপাঠন, গরমের ছুটি নিয়ে নয়া আপডেট সামনে এল

গরমের ছুটির পর স্কুল খুলতে চলেছেস্কুলে গরমের ছুটি: গ্রীষ্মেরতীব্র দাবদাহের কারনে রাজ্যের স্কুলগুলোতে গরমের ছুটি দেওয়া হয়েছিল। তীব্র গরমের কথা মাথায় রেখে যাতে পড়ুয়ারা অসুস্থ না হয়ে যায় তার জন্য ২২ এপ্রিল থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছিল গরমের ছুটি। এবার রাজ্যের স্কুলগুলো খুলতে চলেছে।৩রা জুন থেকেই স্কুল খুলতে চলেছে রাজ্যে।২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষের ছুটির তালিকা অনুযায়ী চলতি বছর ৬ মে থেকে গরমের ছুটি শুরু হওয়ার কথা ছিল এবং স্কুল খোলার কথা ছিল ২ জুন। তবে গরমের কারণে ছুটি আগিয়ে ২২ এপ্রিল থেকে দেওয়া হলেও স্কুল খোলার দিন এখনো ঘোষণা করা হয়নি। গোটা দেশে লোকসভা ভোটের গণনা আছে ৪ জুন।সম্প্রতি গরমের ছুটি বাতিল করে ফের স্কুল খোলার দাবি জানায় বঙ্গীয় প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রধান শিক্ষক সমিতি। দুই শিক্ষক সংগঠনের দাবি ছিল, এক দফায় এত লম্বা ছুটি না দিয়ে আপাতত স্কুল খোলার ব্যবস্থা করা হোক। কিছুদিন পর ফের অত্যাধিক গরম পড়লে তখন নাহয় ছুটি দেওয়া যাবে।জানা গিয়েছে, ৩ জুন থেকেই স্কুল খুলতে চলেছে রাজ্যে। বর্তমান পরিস্থিতির তেমন কোনও বদল না হলে ৩ জুন থেকেই রাজ্যের স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা দফতর। স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে আগেই নির্দেশিকা দিয়ে জানানো হয়েছিল ২ রা জুন থেকে স্কুল খুলবে। তবে এদিন একদিন পর ধরে চলতে বলা হয়েছে। স্কুল খোলার পর গরমের ছুটির কারণে অতিরিক্ত ক্লাস করাতে হবে স্কুলে স্কুলে। ইতিমধ্যেই তা নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য।

ভোটের কাজে স্কুলগুলিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর থাকার ব্যবস্থা হয়েছে। কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকার পর বিভিন্ন স্কুলে স্কুলে কী অবস্থা? বিভিন্ন জেলার স্কুল বিদ্যালয় পরিদর্শকের থেকে জানতে চেয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতর।৩ জুন থেকে স্কুল খুললেও নিয়মিত ক্লাস শুরু হতে পারে আগামী ৫ জুন থেকে। অর্থাৎ স্কুল খোলার একদিন পর থেকে। কারণ, ভোটের কারণে স্কুলগুলোতে এখনও কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে। অন্যদিকে ৪ জুন রয়েছে ভোটের রেজাল্ট। জানা যাচ্ছে, ভোটের ফলাফল বের হওয়ার পর, স্কুলগুলোতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও প্রস্তুতির জন্য কিছুটা সময় লেগে যাবে। তাই, আগামী ৫ জুন থেকেই ফের স্কুলে নিয়মিত পঠন-পাঠনা শুরু হবে, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।শিক্ষক মহলের একাংশ দাবি করছে যে ছাত্র ছাত্রীরা এতদিন ছুটি উপভোগ করলেও, স্কুল খুললে ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর বাড়তি চাপ পড়তে চলেছে। কারণ সামনেই ইউনিট টেস্ট। সময়মতো সিলেবাস কমপ্লিট করা খুব চাপের। তাই সেখত্রে অতিরিক্ত অনলাইন ক্লাসের কথাও বলা হয়েছে।এর আগে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছুটি ঘোষণা হলেও স্কুল খোলার ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি। সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল পরবর্তী পরিস্থিতি বিবেচনা করে তবেই স্কুল খোলার ঘোষণা হবে। সরকারিভাবে এখনও ঘোষণা না হলেও জানা যাচ্ছে ৩ জুন থেকে রাজ্যের সরকারী স্কুলগুলো খুলতে চলেছে।