নদীয়ার শান্তিপুরে প্রকাশ্য রাস্তার পাশে অবস্থিত জাগ্রত শনি মন্দির থেকে দুঃসাহসিক চুরি

মলয় দে নদীয়া :- নদিয়ার শান্তিপুর শহর সংলগ্ন হরিপুর পঞ্চায়েতের কুতুবপুর এলাকায় প্রকাশ্য রাস্তার উপর অবস্থিত প্রায় ১২ বছরের অত্যন্ত জাগ্রত শনি মন্দিরে দুঃসাহসিক চুরি। মন্দিরের একেবারে সামনের বাড়ির এক মহিলা জানান তিনি সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে দেখেন আমি রাস্তায় ঘট বসানো রয়েছে, মন্দিরের গ্রিলের দরজার তালা ভাঙ্গা, ভেতরে সমস্ত কাঁসা-পিতলের বাসন-কোসন সহ প্রনামী বাক্স উধাও। এরপর কাঠের প্রনামি বাক্স ভাঙ্গা অবস্থায় উদ্ধার হয় কিছুটা দূরে একটি আম বাগানের পাশ থেকে।


এলাকার ভক্তরা জানানপ্রতি পৌষ মাসে বাৎসরিক অনুষ্ঠানের আগে তাদের প্রনামী বাক্স খোলা হয়। গত বছরের নিরিখে আনুমানিক প্রায় ১৫ হাজার টাকা ছিল বলেই দাবি করেছেন তারা, অন্যদিকে ঠাকুরের বাসনও প্রায় ১০-১২ হাজার টাকা মূল্যের, গ্রহরাজের গায়ে কোন গহনা না থাকলেও ঘটের ওপরে থাকা সোনার বেলপাতাও আনুমানিক প্রায় ১৫-২০ হাজার টাকা মূল্যের।

তবে ঘটে মাটি লাগানোর কারণে মাটির ভেবে হয়তো ফেলে রেখে গেছে রাস্তার উপর। দুঃসাহসিক এই চুরিতে যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়, এলাকাবাসী শান্তিপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানাবেন বলেই জানিয়েছেন আমাদের তারা এও বলেন, সম্প্রতি মাঝেমধ্যেই অনেকের বাড়িতেই রাত বিরাতে উঁকি ঝুঁকি চলে বেশ কিছু সমাজবিরোধীদের যারা মূলত গভীর রাতে পরিত্যক্ত ফাঁকার জায়গায় মদ্যপানসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত।

রাস্তা দিয়ে রাতে পুলিশ গাড়ি টহল দিলেও বিভিন্ন ফাঁকা জায়গা বাগান পরিত্যক্ত স্থানে তারা এ ধরনের আসর বসিয়ে থাকে। তবে মন্দিরের সামনে সিসি ক্যামেরা না থাকলেও কিছুটা দূরে একটি কারখানায় সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখে তদন্ত শুরু করেছে শান্তিপুর থানার পুলিশ ।