জল জীবনে জল নষ্ট, সব সময় পড়েই চলেছে ট্যাপ থেকে, উদাসীন কর্তৃপক্ষ

আবদুল হাই বাঁকুড়া :- এই গ্রীষ্মের তাপমাত্রা যা দীর্ঘ ৫০ বছরের রেকর্ড, দেশের পূর্বের তাপমাত্রার সমস্ত রেকর্ড ভেঙে প্রতিদিন নয়া রেকর্ড সৃষ্টি করেছে পারদের ওঠা নামা এমতাবস্থায় মানুষের জীবন যখন অষ্টাগত তখন জল হয়ে ওঠে মানুষের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহারিক বস্তু আর সেই জল ব্যবহারিক সময়ের বাদ দিয়েও সর্বসময় পড়েই চলেছে ট্যাপ থেকে আর এটা যখন হচ্ছে তখন বাঁকুড়া জেলার বহু জায়গায় জলের চরম সংকটের জন্য হাহাকার করছে মানুষ।

চরম সংকটের সময়ে এরকম জল নষ্টের মতো বিলাসিতা সত্যি আশ্চর্যজনক এবং দুর্ভাগ্যজনক। ভূগর্ভস্থ জলস্তর এমনিতেও হু হু করে নেমেছে, জল সংকটে আছে দেশের কোটি কোটি মানুষ এবং ভু-বিজ্ঞানীদের মতে আগামী দিনে ভূগর্ভস্থ জলের স্তর এতটা পরিমাণে কমে যাবে যে বহু ক্ষেত্রে পানীয় জলের চরম সংকটের মুখে পড়বে পৃথিবীবাসী।

এই চরম সংকট থেকে বেড়েয়ে আসার আগাম প্রস্তুতি হিসাবে বিভিন্ন দেশ বিভিন্নভাবে আগামী দিনের জল সংকট মোকাবিলা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প নিয়েছে, জল জীবন মিশনে “জল ধরো, জল ভরো” সেরকম প্রকল্পের মধ্যে একটি কিন্তু কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় দীর্ঘদিন বাঁকুড়া জেলার ইন্দাস ব্লকের গোবিন্দপুর বাজারে ট্যাপের মুখ সর্বসময় খোলা থাকার কারণে ব্যবহারিক সময় বাদ দিয়েও সব সময় পড়ে চলেছে জল, এই ঘটনায় সত্যি অবাক করে এলাকাবাসীকে কিন্তু কেনই বা উদাসীনতা ? এ সম্পর্কে কি বলছেন এলাকার মানুষ, আর কিবা বলছেন জল জীবন মিশনের “জল ধরো, জল ভরো” কর্তৃপক্ষ ?